RSS

ঘাড় ব্যথায় করণীয়

06 ডিসে.

ঘাড় ব্যথায় করণীয়


ঘাড় ব্যথার অন্যতম কারণ সারভাইকাল স্পনডাইলোসিস। এটা ঘাড়ের হাড় ক্ষয়জনিত সমস্যা। ঘাড়ের হাড় ও হাড়ের মধ্যবর্তী ডিক্সে সমস্যা দেখা দেয়। চল্লিশ বয়শোর্ধ্ব মানুষের মধ্যে এ সমস্যা অনেক বেশি। পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের মধ্যে এ সমস্যা বেশি দেখা দেয়। সাধারণত ঘাড়ের পেছন দিক থেকে ব্যথা শুরু হয়, অনেক সময় মাথা ব্যথা, কাঁধে ব্যথা বা হাতে ব্যথা হতে পারে। ব্যথা ওঠানামা করতে পারে। হাতের মাংসপেশিতে ঝিমঝিম বা শিনশিন জাতীয় বা কমাড়ানোজাতীয় ব্যথা হতে পারে। রোগী ঘাড় ঘুরাতে গেলে ব্যথা বেড়ে যায়। এতে করে হাত ও ঘাড়ের কর্মক্ষমতা কমে আসে। এ ক্ষেত্রে যেখানে সেখানে চিকিৎসা না করে সঠিক চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নেয়া উচিত।

নিুলিখিত উপদেশগুলো মেনে চললে ঘাড় ব্যথাজনিত সমস্যা অনেকাংশে লাঘব করা যায়। কখনো অতিরিক্ত ওজন মাথায় নেবেন না বা হাতে বহন করবেন না। ঘাড়ে আঘাত পেলে অবশ্যই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। শোয়ার সময় মাথার নিচে নরম ও হালকা বালিশ ব্যবহার করবেন। কম্পিউটিং, পড়াশোনা, লেখালেখি অফিসের কাজের ফাঁকে ফাঁকে চিকিৎসকের নির্দেশমতো ঘাড় ও হাতের স্ট্রেচিং বা ব্যায়াম করতে পারেন। অনেক সময় পুরনো ঘাড়ের ব্যথায় গরম সেক ভালো উপকারে আসে।

Advertisements
 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন ডিসেম্বর 6, 2010 in সাস্থ্য

 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

 
%d bloggers like this: