RSS

হাওয়া (আঃ) এর অপরাধ?

07 ডিসে.

হাওয়া (আঃ) এর অপরাধ?


তিনটি ধর্ম একটি সত্যের উপর একমত তা হল আল্লাহ রাব্বুল আলামীন পুরুষ ও নারীকে সৃষ্টি করেছেন আর তিনিই সমস্ত পৃথিবীর সৃষ্টিকর্তা। ধর্মগুলোর মধ্যে যতসব বৈপরিত্য হয়েছে সবই প্রথম মানুষ আদম ও হাওয়া (আঃ) এর সৃষ্টির পর। ইহুদী ও খৃষ্টানদের বিশ্বাস হচ্ছে আল্লাহ তায়ালা আদম ও হাওয়া (আঃ) কে নিষিদ্ধ গাছের ফল খেতে নিষেধ করেছিলেন। কিন্তু, সাপ হাওয়া (আঃ) কে নিষিদ্ধ গাছের ফল খাওয়ায় প্ররোচনা দিয়েছে আর হাওয়া (আঃ) আদম (আঃ) কে তা খেতে প্ররোচনা দিয়েছেন।(নাউজুবিল্লাহ) আল্লাহ তায়ালা যখন আদম (আঃ) কে অপরাধের জন্য দোষারোপ করেছেন তখন আদম (আঃ) তার সব দোষ হাওয়া (আঃ) কে দিয়ে বলেছেন: “অতঃপর আদম (আঃ) বললেনঃ ওই মহিলা আমাকে দিয়েছে তাই আমি তা খেয়েছি।” (জেনেসিসঃ৩/১২)

স্রষ্টা মহিলাদের সম্বন্ধে বললেন:আমি তোমাদেরকে অনেক কষ্টের সন্মুখীন করব। সন্তান প্রসবের সময় ব্যথা পাবে;আর তোমার সমস্ত মনোনিবেশ হবে তোমার স্বামীর দিকে। যে তোমার উপর কর্তৃত্ব করবে। আর তিনি আদম (আঃ) কে বললেনঃ তুমি তোমার স্ত্রীর কথা শুনে আমার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নিষিদ্ধ গাছের ফল খেয়েছ যার সম্বন্ধে আমি বলেছি পৃথিবীর এ অভিশপ্ত গাছ থেকে ভক্ষন করো না। এর কারণে দুঃখ-কষ্ট তোমার জীবনের দিনগুলিকে খেয়ে ফেলবে। (জেনেসিসঃ৩/১৬-১৭)

অপর দিকে সৃষ্টির শুরুর ঘটনাবলী নিয়ে কুরআন শরীফের বিভিন্ন স্থানে আলোচিত হয়েছে। যেমন আল্লাহ বলেন:

وَيَا آدَمُ اسْكُنْ أَنْتَ وَزَوْجُكَ الْجَنَّةَ فَكُلَا مِنْ حَيْثُ شِئْتُمَا وَلَا تَقْرَبَا هَذِهِ الشَّجَرَةَ فَتَكُونَا مِنَ الظَّالِمِينَ (19) فَوَسْوَسَ لَهُمَا الشَّيْطَانُ لِيُبْدِيَ لَهُمَا مَا وُورِيَ عَنْهُمَا مِنْ سَوْآتِهِمَا وَقَالَ مَا نَهَاكُمَا رَبُّكُمَا عَنْ هَذِهِ الشَّجَرَةِ إِلَّا أَنْ تَكُونَا مَلَكَيْنِ أَوْ تَكُونَا مِنَ الْخَالِدِينَ (20) وَقَاسَمَهُمَا إِنِّي لَكُمَا لَمِنَ النَّاصِحِينَ (21) فَدَلَّاهُمَا بِغُرُورٍ فَلَمَّا ذَاقَا الشَّجَرَةَ بَدَتْ لَهُمَا سَوْآتُهُمَا وَطَفِقَا يَخْصِفَانِ عَلَيْهِمَا مِنْ وَرَقِ الْجَنَّةِ وَنَادَاهُمَا رَبُّهُمَا أَلَمْ أَنْهَكُمَا عَنْ تِلْكُمَا الشَّجَرَةِ وَأَقُلْ لَكُمَا إِنَّ الشَّيْطَانَ لَكُمَا عَدُوٌّ مُبِينٌ (22) قَالَا رَبَّنَا ظَلَمْنَا أَنْفُسَنَا وَإِنْ لَمْ تَغْفِرْ لَنَا وَتَرْحَمْنَا لَنَكُونَنَّ مِنَ الْخَاسِرِينَ (23)
অর্থাৎ, হে আদম! তুমি এবং তোমার স্ত্রী জান্নাতে প্রবেশ কর। অতঃপর সেখান থেকে যা ইচ্ছা খাও, তবে ঐ বৃক্ষের পাশে যেয়ো না। তাহলে তোমরা গোনাহগার হয়ে যাবে। অতঃপর শয়তান উভয়কে প্ররোচিত করল যাতে তাদের গোপন অংগসমুহ প্রকাশিত হয়। সে বলল: তোমরা উভয়ে ফেরেশতা কিংবা চিরকাল জান্নাতে বসবাস কারী হয়ে যাবে এ জন্য আল্লাহ তোমাদেরকে এ গাছের নিকটবর্তী হতে নিষেধ করেছেন। সে তাদের কাছে কসম খেয়ে বলল: অবশ্যই আমি তোমাদের হিতাকাংখী। অতঃপর প্রতারণাপূর্বক তাদেরকে সম্মত করে ফেলল। অনন্তর, যখন তারা ওই গাছ থেকে আস্বাদন করল, তখন তাদের লজ্জাস্থান সমূহ খুলে গেল এবং তারা বেহেশতের পাতা দিয়ে নিজেদের লজ্জাস্থান ঢাকতে শুরু করলেন। তাদের পালনকর্তা তাদেরকে ডেকে বললেনঃ আমি কি তোমাদেরকে ওই গাছের নিকটবর্তী হতে নিষেধ করি নি? আর আমি কি তোমাদেরকে বলে দেই নি যে, শয়তান তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু?

তারা উভয়ে বলল: হে আমাদের রব! আমরা নিজেদের উপর যুলুম করেছি। যদি আপনি আমাদেরকে ক্ষমা ও অনুগ্রহ না করেন তাহলে, আমরা ক্ষতিগ্রস্থদের অন্তর্ভূক্ত হয়ে যাব। (সুরা আরাফঃ ১৯-২৩)

উপরোক্ত দুটি ঘটনার দিকে যদি আমরা দৃষ্টি নিবদ্ধ করি তাহলে আমরা অনেক মৌলিক পার্থক্য দেখতে পাব। কুরআন শরীফ বাইবেলের বিপরীত যেখানে দোষারোপ করা হয়েছে আদম ও হাওয়া(আঃ)উভয়কেই। কুরআন শরীফের কোথাও বলা হয় নি যে, হাওয়া (আঃ) আদম (আঃ) কে গাছ থেকে খেতে প্রতারিত করেছেন বা তিনি আদম (আঃ) এর আগেই তা খেয়েছেন।

সুতরাং, কুরআন অনুযায়ী হাওয়া (আঃ) আদম (আঃ) কে প্রতারণা কিংবা বিপথে পরিচালিত করেন নি। আর গর্ভধারণের যন্ত্রণা মায়েদের উপর আল্লাহ তায়ালার শাস্তি নয়। কুরআন শরীফে উল্লেখিত বর্ণণানুযায়ী আল্লাহ তায়ালাকারো অপরাধের কারণে অন্যকে শাস্তি দেন না। অতএব, আদম ও হাওয়া (আঃ) উভয়েই সমান অপরাধ করে আল্লাহ তায়ালার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছিলেন আর আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে ক্ষমা করে দিয়েছেন।

Advertisements
 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

 
%d bloggers like this: